ক্যারিয়ার গাইডলাইন

+8801787659323

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি? ডিজাইনের ৭ টি কার্যকর টুলসের ব্যবহার

গ্রাফিক্স ডিজাইন কি?

গ্রাফিক্স ডিজাইন হলো এমন একটি আর্ট বা শিল্প যা বর্তমান ডিজিটাল যুগের মার্কেটিং,ব্র্যান্ডিং এবং প্রমোশনাল সেক্টর এর অন্যতম হাতিয়ার। গ্রাফিক্স ডিজাইনিং এ একজন ডিজাইনার বিভিন্ন কম্পিউটার সফটওয়্যার এর সাহায্যে  কিছু তথ্য ও ধারণাকে  নিজের ক্রিয়েটিভিটি ইউজ করে একটি পরিপূর্ণ ডিজাইন এ পরিণত করে। গ্রাফিক্স মূলত একটি জার্মান শব্দ যার মানে হলো নকশা তৈরী করা। এটি এমন একটি স্কিল যা আপনার ডিজাইনিং ক্রিয়েটিভিটি কে আপনি কাজে লাগিয়ে কিভাবে বিভিন্ন প্রফেশনাল সেক্টর এ ইনকাম করতে পারবেন তার পথ সুগম করে দিতে পারে। গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজের ভেতরে পড়ে বর্তমান ডিজিটাল প্লাটফর্ম এর প্রায় অধিকাংশ সেক্টর। আজকাল প্রায় সকল বিজিনেস ডিজিটাল এবং সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম এর উপরে নির্ভরশীল যেখানে প্রতিনিয়ত ই প্রয়োজন ব্যানার, পোষ্টার, বিলবোর্ড, সোশ্যাল মিডিয়া কভার ফটো, টেলিভিশন কমার্শিয়াল, ইত্যাদির ডিজাইন। আর ডিজিটাল প্লাটফর্ম এর এইসব ডিজাইন করার জন্য বর্তমান যুগে সবাই গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের উপর দিন দিন নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে। নিজের আইডিয়া, কর্ম দক্ষতা, ইউনিক কিছু ডিজাইন,সহজ , সিক্রেট কিছু টিপস আর গ্রাফিক্স ডিজাইনিং কোর্স এ স্কীলড হলে দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠা এই প্রফেশন এর মাধ্যমে খুব দ্রুতই নিজের পছন্দসই ক্যারিয়ার এ ডেভেলপ করা সম্ভব।   

গ্রাফিক্স ডিজাইনের ৭ টি কার্যকর টুলসের ব্যবহার 

বিভিন্ন কর্পোরেট সেক্টর এর কোম্পানিগুলোতে যেমন গ্রাফিক্স ডিজাইনার দের চাহিদা বেড়েই চলেছে ঠিক তেমনি ফ্রিল্যান্স এর প্রায় সকল মার্কেটপ্লেস এই গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের চাহিদা ব্যাপক। ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেস গুলো আয় ডলারে হওয়ায় আপনার আয় অনেক বেশী হয়ে থাকে।তবে ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেস গুলোতে কাজ করার জন্যে আপনার ইংলিশ স্কিল ভালো হতে হবে এবং সেই সাথে একজন দক্ষ গ্রাফিক্স ডিজাইন হতে হবে।ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেস গুলোর মধ্যে অন্যতম হল Fiverr,Upwork.Freelancer. 99 Designs, Dribble, Behance, Envato Studio ইত্যাদি। 

একজন দক্ষ এবং প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে হলে আপনাকে শিখতে হবে নিচে বর্ণিত ৭ টি প্রয়োজনীয় টুলস …

1. Adobe Photoshop

Adobe সফটওয়্যার হলো গ্রাফিক্স ডিজাইনিং এর জগতে সবচেয়ে পরিচিত সফটওয়্যার। আপনি এমন কোনো গ্রাফিক্স ডিজাইনার খুঁজে পাবেন না যে Adobe Photoshop  ইউজ করে না। একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে হলে আপনাকে আপনার ক্যারিয়ার এর প্রতিটি ধাপেই Adobe Photoshop ব্যবহার করতে হবে। যেকোনো ইমেজ অথবা ডিজাইন এ ফটো রিটাচ করতে , রং পরিবর্তন করতে , ফটো ইফেক্ট অ্যাড করতে এছাড়াও ফটো ম্যানুপোলিশন সহ সকল কাজ Adobe Photoshop দ্বারাই করা হয়। সুতরাং, একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার এর ক্যারিয়ার এর শুরুতে Adobe Ps এর ব্যবহার শেখাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।  

2. Adobe Illustrator (Ai)

যেকোনো বিজিনেস বা কোম্পানির ভিজিটিং কার্ড, ইনভাইটেশন কার্ড, বিজনেস কার্ড সহ পোস্টার, লিফলেট, বইয়ের কাভার পেজ, ব্যানার ইত্যাদি ডিজাইন করতে হলেও গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের দরকার হয়। এই টাইপ এর সকল ডিজাইন মূলত গ্রাফিক্স ডিজাইনাররা Adobe Illustrator টুলস এর সাহায্যে করে থাকে।  তাই গ্রাফিক্স ডিজাইনিং এর ওয়ার্ল্ড এ Adobe Illustrator টুলস টি অনেক বেশি প্রয়োজনীয় ও গুরুত্বপূর্ণ টুলস। এছাড়াও বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা ভিডিও তে যেই টাইপ এর ক্যারেকটার বা কার্টুন থাকে ওই কার্টুন গুলোর ডিজাইন ও এই টুলস ইউজ করেই করা যায়।  

3. Adobe Indesign (Id)

যেকোনো ধরনের প্রিন্টিং ম্যাটেরিয়ালের কাজ যেমন ধরুন – বই, নিউজপেপার, ম্যাগাজিন,ই-বুক বা যেকোন লেখার কাজ এবং সেগুলো খুব সহজেই ছাপাতে হলে Adobe এর একটি বিশেষ অ্যাপলিকেশন সফটওয়্যার আছে যার নাম Adobe Indesign। পেইজমেকার সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানি, আবার অনেকে হয়তো এই পেইজমেকার কি সেটাই জানেন না। Adobe Indesign (In) হলো এমনি একটি এপ্লিকেশন সফটওয়্যার বা টুল যার মাধ্যমে পেইজমেকার করে  গ্রাফিক্স ডিজাইনাররা বই, ম্যাগাজিন , ডিক্শনারি ইত্যাদি বড় বড় লেংথ এর কাজ করে থাকে। সুতরাং, গ্রাফিক্স ডিজাইনার দের জন্য Adobe Indesign (In) খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি টুল। 

4. AdobeXD (Xd)

ইদানিং যেকোনো কোম্পানি হোক বা পার্সোনাল পোর্টফোলিও সবাই ওয়েবসাইট বেসিস এ করতে চায়।  কারণ, বর্তমান এই ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড এ কোনো কোম্পানি ভেরিফাইড কিনা তা মানুষ বিবেচনা করে সেই কোম্পানির ওয়েবসাইট এড্রেস আছে কিনা সেটা দেখে। আবার ম্যাক্সিমাম কোম্পানি তাদের বিজিনেস এর প্রচার প্রসার এর জন্য বিভিন্ন ধরণের App লঞ্জ করে। এইসকল ওয়েবসাইট বা Apps সবই ডিজাইন করা হয় প্রফেশনাল UI/UX ডিজাইনার দিয়ে। যারা মূলত গ্রাফিক্স ডিজাইনিং এরই আরেকটি অংশ।  Adobe xd দিয়ে ওয়েবসাইটের ইউজার ইন্টারফেজ, মোবাইল এপসের এই ডিজাইন সহ ইউজার এক্সপেরিয়েন্সের কাজগুলো এবং অন্যান্য ওয়্যারফ্লেম, প্রটোটাইপিং এর কাজগুলোও করতে পারবেন।কেউ যদি ইউজার ইন্টারফেস (UI) ডিজাইন করতে আগ্রহী হয়ে থাকে সে খুব সহজেই Adobe Xd এবং Adobe Xd এর ফাংশনগুলো ব্যবহার করে নিজের পছন্দমত একটি UI/UX design তৈরী করতে পারবে। 

5. Figma

যারা বেসিক লেভেল এর গ্রাফিক্স ডিজাইন জানে, তারা যদি বেসিক গ্রাফিক জানার পর আরো এডভান্সড কিছু ডিজাইন বা প্রফেশনাল ডিজাইনের কাজ করতে চান তাহলে Figma এর মাধ্যমে গ্রাফিক  ডিজাইনের বিস্তর ধাপ Ul/ UX ডিজাইনের কাজগুলো করতে পারবেন। Figma হল Adobe Xd এর চেয়েও অধিক উন্নত এবং Ul/UX এর জন্য সবচেয়ে কার্যকরী সফটওয়্যার। একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার তার ডিজাইনের জন্য অনেক বেশী টুলস, এলিমেন্ট এবং প্লাগইন সহ আরো প্রয়োজনীয় সব কিছূই পেয়ে যাবেন Figma তে। সুতরাং, Adobe Xd এর মতো কিন্তু এর চেয়েও উন্নত উপায়ে ইউজার ইন্টারফেজ ডিজাইন, এবং ইউজার এক্সপেরিয়েন্স (UI) এর কাজ করতে চাইলে Figma ইউজ করাটা হবে একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার এর জন্য বেটার অপশন।  

Share this post :

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest

Latest Post